সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের কেন্দ্রীয় সহ – সাংগঠনিক সম্পাদক বেদারুল আলম চৌধুরী বেদার বলেছেন, আমাদের নতুন প্রজন্মের এতটাই দূর্ভাগ‍্য বিজয়ের ৫০ বছর পর স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তীতে এসেও বাঙালি জাতির জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটাক্ষ – বিদ্রূপ শোনতে হয়। পৃথিবীর বুকে আর কোনো দেশ দ্বিতীয়টি খুঁজে পাওয়া যাবেনা ;যেখানে ত্রিশ লাখ মানুষ এক নদী রক্তের বিনিময়ে মানচিত্র ও পতাকা আনার পরও সেখানে সেখানে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ -বিপক্ষ শক্তি বলে পরিচয় দিয়ে রাজনীতি করার দৃষ্টতা দেখায়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শিক পথে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন সুযোগ পেলেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দুশমন ধর্মান্ধ সাম্প্রদায়িক অপশক্তি পরিকল্পিতভাবে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরী করে উন্নয়ন অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির ধারা ব‍্যাহত করতে চায়। সাম্প্রতিক সময়ে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কতিপয় রাজনীতিবিদের “শিশু মুক্তিযোদ্ধা”, “প্রথম নারী মুক্তিযোদ্ধা” ও “একাত্তরের গন্ডগোল” সহ নানাবিধ শ্লেষাত্মক উক্তিতে উদ্বেগ প্রকাশ হতাশা ব‍্যক্ত করে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে কটুক্তি বন্ধে এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী শক্তি ও তাদের দোসরদের রাজনীতি চিরতরে নিষিদ্ধ করতে কঠোর আইন প্রনয়ণ এখন সময়ের দাবি। আজ সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) বিকালে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিববর্ষের বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম – বৃহত্তর চট্টগ্রাম আয়োজিত “জেগে থাকো বাংলাদেশ,লাখো শহীদের রক্তের শপথে ” শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ’কথা বলেন। সংগঠনের সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার পলাশ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে নগরীর দোস্তবিল্ডিংস্থ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন সংগঠনের সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী। আলোচনায় অংশনেন সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন,সাধারণ সম্পাদক দীপন দাশ, মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, মহানগর সভাপতি রাজীব চন্দ,নবী হোসেন সালাউদ্দিন,সোহেল ইকবাল,শহিদুল আলম সাইমুন,শাহাদাত টিপু, কোহিনুর আকতার,এস.এম রাফি,ইয়াছিন আল উৎসব,মাঈন উদ্দিন,শাহজালাল আদর,মোঃ তানজিদ,তায়েফ হোসেন,মোহাম্মদ হাছান,আবদুল করিম,মোঃ তারেক প্রমূখ