চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পদুয়ার জয়নগর উত্তরপাড়া ৫নং ওয়ার্ড জাগির মাস্টার অলি আহমদ দফাদারের বাড়ি এলাকায় ফাঁস দিয়ে রনি আকতার (২১) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। নিহত রনি আকতার পদুয়া জয়নগর পাড়া মো. ওসমান (৩০) পিতা- জেবল হোসেনের স্ত্রী।
বৃহস্পতিবার (৫ ই মে ) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের জয়নগর উত্তরপাড়া ৫নং ওয়ার্ড জাগির মাস্টার অলি আহমদ দফাদারের বাড়ি এলাকায় নিজ বাড়িতে নিজ কক্ষে ফাঁস দেয় সে।
মৃত গৃহবধুর দুই বছরের একটি ছেলে সন্তান ও ৬ মাসের এক কন্যা সন্তান রয়েছে।
জানাযায়, ওসমানের ভাই আরফানের মোবাইল থেকে শাশুরী মনোয়ারা বেগমকে ফোন দিয়ে প্রথমে স্ত্রীর ইলেক্ট্রনিক শর্টের কথা জানান।
তার কিছুক্ষণ পুর্বে পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশি লাকী আকতার নামে এক মহিলা মনোয়ারা বেগমকে ফাঁসের বিষয়টি জানায়।
নিহতের পরিবারের লোকজন জানায়, রনি আকতারকে মেরে ফেলা হয়েছে। আমরা সংলিষ্ট সকলের সুস্থ বিচার চাই,ফাসি চাই।

ওসমানের ভাই আরফান জানায়, আমি সকাল ১১ টার সময় পথ দিয়ে যাওয়ার পথে তাদের ঝগড়া / কথা-কাটাকাটির শব্দ শুনতে পাই, কিছুক্ষণ পরে জানতে পারি রনি আকতার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।
জানা যায়,নিহত রনি আকতার (২১) পদুয়া ইউনিয়ন ৯ নং ওয়ার্ডের জিলানী পাড়া মো. আবুল হাশেমের মেয়ে। ২০১৮ সালে পারিবারিক ভাবে পদুয়া ইউনিয়নের জয়নগর গ্রামের মো.জেবল হোসেন ছেলে মো. ওসমানের সাথে বিয়ে হয় রনি আকতারের।
তার স্বামী যোতুক দাবি করত এবং বদ মেজাজী হওয়ায় কারণে অকারণে তাকে মারধর করত। এছাড়া ইউনিয়ন পরিষদে স্বামীর বিরুদ্ধে একটি সালিশও হয়, ভবিষ্যতে স্বামী স্ত্রীর উপর নির্যাতন করবেনা মর্মে ওয়াদা করে স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হয়।
জানা যায়,প্রথমে কয়েক জন ছোট ছেলে রনি আকতারকে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পাশ্ববর্তী লোকজনকে খবর দেয়, প্রতিবেশীরা প্রশাসনকে খবর দেয়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে দক্ষিন রাঙ্গুনিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওবায়দুল ইসলাম বলেন,আমরা মরদেহ ময়নাতদন্তরে জন্য মর্গে পাঠিয়েছি, রিপোর্ট আসার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব। প্রাথমিকভাবে স্বামী স্ত্রীর মাঝে ঝগড়া কারনে আত্মহত্যা করছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। একটি আত্মহত্যার প্ররোচনায় মামলা রুজু করার প্রক্রিয়াধীন। স্বামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।