জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে চট্টগ্রাম রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দিন ও রাতে প্রতি তিন ঘন্টা পর পর ১ঘন্টা করে মোট ৬ঘন্টা লোডশেডিংয়ের আওতায় নিয়ে আসছে পল্লী বিদ্যুৎ।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) থেকে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় দিন ও রাতে মোট ৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ না থাকার কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ-২ এর ডিজিএম (রাঙ্গুনিয়া জোনাল আফিস) জুয়েল দাশ।

তিনি জানান, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা এলাকাভিত্তিক প্রাথমিক একটি রুটিন করেছি। উৎপাদন ঘাটতি ও সিস্টেম ফ্রিকুয়েন্সির সমস্যা না হলে আমরা চেষ্টা করব এই রুটিন ফলো করতে। তবে ঘাটতি বেশি হলে এই সময়ের ব্যত্যয় ঘটতে পারে। অথবা ঘাটতি কম হলে তার চাইতেও কম সময় লোডশেডিং হতে পারে।

গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের অনুরোধ জানিয়ে জুয়েল দাশ বলেন, বিদ্যুৎ অপচয় রোধ করে লোডশেডিং অনেকটা এড়ানো সম্ভব। রাঙ্গুনিয়া পল্লী বিদ্যুৎ এলাকার আওতায় ১লাখ ১০ হাজার গ্রাহক রয়েছেন। বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে মোট ৩০ মেগাওয়াট।

যদি পিক আওয়ারে প্রত্যেকে গড়ে ১০০ ওয়াট বিদ্যুৎ বন্ধ রাখেন, তাহলে মোট ৬ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। ফলে লোডশেডিংয়ের পরিমাণ কমে আসবে। এ অবস্থায় সকল গ্রাহক পিক সময়ে অন্তত একটি ফ্যান এবং অপ্রয়োজনীয় বাতি বন্ধ রেখে জাতীয় সংকট মুহূর্তে সহযোগিতা করবেন- এটাই আশা করছি।

তিনি আরো জানান, উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা মিলে বিদ্যুৎ বিতরণের সুবিধার্থে ১৪টি এলাকায় ভাগ করে নির্দিষ্ট নিয়মে লোডশেডিং চলবে।

ডিজিএম (রাঙ্গুনিয়া জোনাল আফিস) জুয়েল দাশ বলেন, রাঙ্গুনিয়ায় যে লোডশেডিংয়ের শিডিউল করা করা হয়েছে তাতে জ্বালানিরতথা বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে ৭২ মেগাওয়াট (২৪ ঘন্টা)।

উল্লেখ্য, বিদ্যুৎ সংকট মোকাবিলায় দেশজুড়ে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সোমবার (১৮ জুলাই) সরকারের সিদ্ধান্তের কথা জানান প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী। সে হিসেবে রাঙ্গুনিয়াসহ সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) থেকে কার্যকর হবে।