নিউজ ডেস্ক: ঝড়ের কবলে বনবিভাগের নার্সারী বড় গাছের ঢাল উপড়ে পড়ে আছে বিদ্যুতের (৩৩ হাজার ভোল্টেজের লাইন) তারের ওপর। গাছের ভারে নিচের দিকে ঝুলে পড়ছে ওই তার। ডালের ভারে কয়েকটি তার প্রায় একত্রিত হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন এ অবস্থা চললেও সমাধানের কোনো উদ্যোগ নেই। ফলে যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। যে কোন সময় তার ছিরে নিচে পরতে পারে। বিদ্যুতের তারের ওপর থেকে দ্রুত গাছটি সরানোর দাবি জানান এলাকাবাসী।

আজ শুক্রবার সরেজমিনে দেখা যায়, রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বান্দরবান সড়কের মুক্তিযোদ্ধা পার্ক সংলগ্ন রাস্তায় এভাবেই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বিদ্যুতের তারের ওপর পড়ে আছে গাছের ঢাল। ঝুঁকিপূর্ণ এ অবস্থায় সড়কের ওপরেই ঝুলে আছে গাছের ঢালটি। অনেক দিন হয়ে গেলেও গাছটি কাটার উদ্যোগ না নেওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে স্থানীয় পথচারীসহ আশপাশের এলাকার বাসিন্দারা।

স্থানীয়রা জানান, ‘এই রাস্তা দিয়ে বাস,ট্রাক,অটোরিকশা, রিকশা, ভ্যানগাড়িসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে। শুধু তাই নয়, স্থানীয় পথচারীসহ পার্শ্ববর্তী রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দারাসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও এই পথে চলাচল করে।গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তার ওপর অনেক দিন যাবৎ বিদ্যুতের তারে গাছের ঢালটি এভাবেই ঝুলে আছে।
এ অবস্থায় বনবিভাগ কিংবা বিদ্যুৎ অফিসের লোকজনও গাছটি কাটার উদ্যোগ নিচ্ছেন না। বিষয়টি সত্যিই দুঃখজনক।’
বনবিভাগের এক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা যখন জানতে পেরেছি বনবিভাগের গাছের ঢাল উপড়ে বিদ্যুতের তারের ওপর পড়েছে, আমরা বিদ্যুৎ অফিসে যোগাযোগ করেছি। দু-এক দিনের মধ্যেই বিদ্যুতে অফিসের লোকজনের উপস্থিতিতে গাছের ঢালটি কাটা হবে।’

এ বিষয়ে বিদ্যুৎ অফিসের স্থানীয় এক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি সম্বন্ধে আমরা অবগত হয়েছি, বনবিভাগের সমন্বয়ে দ্রুত গাছটি কাটার ব্যবস্থা নেব।’ আপাতত উক্ত তারগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ।